Connect with us

অন্যান্য

উইন্ডোজ ১০-এর পর্দা কালো হলে

Facebook Profile photo

Published

on

অনেক সময় উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমে চলা কম্পিউটারের পর্দা হুট করেই কালো হয়ে যায়। এ ছাড়া কম্পিউটার চালু হওয়ার পর লগইন করলেও উইন্ডোজের পর্দা আর দেখা যায় না, কালো হয়েই থাকে। এ রকম হলে মাউসের কার্সর আর কোনো কাজ করে না। এমন সমস্যার সম্মুখীন হলে কিছু কাজ করতে হবে।

লগইন করার পর হলে : উইন্ডোজে পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার পরই কালো পর্দার এই সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। এমন হলে কম্পিউটারের সঙ্গে লাগানো সব এক্সটার্নাল যন্ত্রাংশ খুলে নিয়ে রিস্টার্ট করুন। যদি পর্দা সচল হয় তবে জানতে পারবেন কোন যন্ত্রের জন্য চালু হচ্ছিল না। এভাবে যন্ত্রাংশ খুলে এবং লাগিয়ে পরীক্ষা নিলে কোন কারণে এমন হচ্ছে তা জানা যাবে। সেই যন্ত্রাংশের জন্য এমন হলে সেটি ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। যন্ত্রাংশ খোলামেলায় যদি সমাধান না আসে তবে কম্পিউটার সেফ মুডে চালাতে হবে। রিস্টার্ট চেপে কিবোর্ডের SHIFT চেপে রাখুন। অনেকগুলো অপশনসহ পর্দা আসবে। সেখানে Safe mode with Networking নির্বাচন করে প্রবেশ করুন। উইন্ডোজের পর্দা অন্য কোনো যন্ত্রের সঙ্গে যুক্ত আছে কি না, সেটি দেখতে Control Panel থেকে Display নির্বাচন করুন। পর্দা উইন্ডোর বাঁ পাশের তালিকা থেকে Project to a Second Display নির্বাচন করুন। একটি সাইড বারে যুক্ত থাকা কম্পিউটার ডিসপ্লেগুলো দেখাবে। এখানে PC Screen Only নির্বাচন করে দিন।

ডিভাইস ম্যানেজার থেকে: কম্পিউটার চালু হলে স্টার্ট মেন্যুতে গিয়ে devmgmt লিখে প্রবেশ করুন। ডিভাইস ম্যানেজার খুললে তালিকার Display Adapters এর ওপর দুবার ক্লিক করে খুলে নিন। Display Adaptor Driver এ ইনস্টল থাকা যন্ত্রে ডান ক্লিক করে Uninstall চাপুন। কম্পিউটার পুনরায় চালু করলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আবার ডিসপ্লে ড্রাইভার সফটওয়্যার ইনস্টল হয়ে যাবে। এটি কালো পর্দা দূর করার অন্যতম মাধ্যম।

Continue Reading
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

অন্যান্য

ফেসবুকের খুঁটিনাটি

Published

on

বর্তমানে ফেসবুক খুবই জনপ্রিয় সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইট। ফেসবুকের খুঁটিনাটি বিষয় এখন জানাবো।
রেজিস্ট্রেশন করা: ফেসবুকে যে কেউ রেজিস্ট্রেশন করতে পারে। এজন্য www.facebook.com সাইটে যান। এবার Sign Up অংশের ফরম পূরণ করে Sign Up বাটনে ক্লিক করুন এবং Security Check এর শব্দদ্বয় লিখে Sign Up বাটনে ক্লিক করলে ফেসবুকের একাউন্ট খোলা হবে। এরপরে ইমেইলে প্রাপ্ত ফেসবুকের মেইলের লিংকে ক্লিক করে ইমেইল ঠিকানা নিশ্চিত করতে হবে।
মোবাইলে ফেসবুক: ফেসবুকের ভক্তরা চাইলে তাদের GPRS উপযোগী মোবাইলেও ফেসবুক ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য m.facebook.com ঢুকে স্বাভাবিকভাবে ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দ্বারা প্রবেশ করতে পারবেন। এর ইমেইল ঠিকানা ছাড়াও মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে ফেসবুকে একাউন্ট খোলা যায়। এজন্য m.facebook.com থেকে Need an account? Sign up using your phone here এর here লেখা লিংকে ক্লিক করুন এবং নাম, কান্ট্রি কোডসহ মোবাইল নম্বর, পাওয়ার্ড দিয়ে Sign up করুন। এরপরে ফেসবুক থেকে প্রাপ্ত এসএমএস এর পিন নম্বরট পরবর্র্তী পেজে দিয়ে একাউন্ট সক্রিয় করুন। এই একাউন্ট দ্বারা কম্পিউটারে ব্যবহার করতে চাইলে লগইন করার সময় ইমেইলের স্থলে মোবাইল নম্বর এবং পাসওয়ার্ড দ্বারা লগইন করতে হবে।

মোবাইল দ্বারা একাউন্ট নিশ্চিত করা: বন্ধুদের যুক্ত করতে গেলে বা অন্য ক্ষেত্রে Security Check ডায়ালগ আসে, যা বেশ বিরক্তিকর। এটা থেকে মুক্তি পেতে Sick of these? এর Verify your account লিংকে ক্লিক করুন তাহলে Confirm Your Phone ডায়ালগ বক্স আসবে। এবার Phone Number: এ আপনার মোবাইল নম্বর লিখে Confirm বাটনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার মোবাইলে ফেসবুক থেকে কোড সম্বলিত ম্যাসেজ আসবে, এখানে উক্ত কোড লিখে Confirm বাটনে ক্লিক করুন। ব্যাস এরপরে আর Security Check ডায়ালগ আসবে না।
বাংলাতে ফেসবুকের ইন্টারফেস: সমপ্রতি ফেসবুকের ভাষার তালিকায় বাংলা ভাষা যুক্ত করা হয়েছে। ইতিপূর্বে এ্যাপলিকেশন দ্বারা বাংলা ইন্টাফেস দেখা যেতো। বর্তমানে উভয় পদ্ধতিতে বাংলা ইন্টারফেসে ফেসবুক দেখা যাবে।
পদ্ধতি ১) ফেসবুকে লগইন করে Accounts Settings এ যান। এবার Language ট্যাবে গিয়ে Primary Language: অংশে বাংলা নির্বাচন করলে কিছুক্ষণের মধ্যে ফেসবুকের চেহারা বাংলাতে রূপান্তরিত হবে।
পদ্ধতি ২) এজন্য www.new.facebook.com/translations ঠিকানাতে যান এবং Allow বাটনে ক্লিক করে এ্যাপলিকেশনটি যুক্ত করুন। এবার Set your language ড্রপডাউন থেকে বাংলা নির্বাচন করুন ব্যস কিছুক্ষণের মধ্যে ফেসবুকের সকল ইন্টারফেস বাংলাতে আসবে।
বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানানো: বন্ধুদের মেইলের মাধ্যমে আমন্ত্রণ জানাতে Friends থেকে Invite Friends এ ক্লিক করুন। এবার To: তে বন্ধুদের ইমেইল লিখে Invite বাটনে ক্লিক করুন। আর যদি আপনার ইমেইল থেকে বন্ধুদের ইমেইল ঠিকানা আনতে চান তাহলে Import Email Addresses এ ক্লিক করে বা ইমেইলের লগোর উপরে ক্লিক করে ইউজার, পাসওয়ার্ড দিয়ে Find Friends বাটনে ক্লিক করুন, তাহলে মেইলে থাকা সকল মেইল ঠিকানা আসবে। এবার যাকে যাকে আমন্ত্রণ জানাতে চান সেই মেইল ঠিকানাগুলো নির্বাচন করে Add to Invite বাটনে ক্লিক করলে To: তে চলে আসবে। এছাড়াও Friends মেনু থেকে Find Friends এ গিয়ে বা হোম পেজে থাকা অবস্থায় ডানের Suggestions থেকে পছন্দের ব্যাক্তিকে আমন্ত্রণ জানাতে Add as Friend এ ক্লিক করুন। এছাড়াও নাম বা ইমেইল ঠিকানা দ্বারা সার্চ করেও আমন্ত্রণ জানাতে পারেন।

আমন্ত্রণ গ্রহন করা: কেউ আপনকে আমন্ত্রণ জানালে হোম পেজের ডানে Requests এ দেখা যায়। এখানে ফ্রেন্ড রিকোয়েষ্ট, প্রুফ ইনভাইটেশন, সাজেশন ইত্যাদি থাকে। আপনি যেকোন একটিতে ক্লিক করে Confirm Request পেজ থেকে আমন্ত্রণ গ্রহন করতে পারেন।
গ্রুফ তৈরী করা এবং যোগ দেওয়া: স্ট্যাটাসবারে প্রুফ আইকনে ক্লিক করে বা www.facebook.com/groups.php ঠিকানাতে যান। এবার পছন্দের গ্রুফটির উপরে ক্লিক করে Join this Group এ ক্লিক করে Add group membership? ডায়ালগ থেকে Join এ ক্লিক করে গ্রুফে যোগ দিতে পারেন। আর গ্রুফ থেকে বের হতে Leave Group এ ক্লিক করে Remove group membership? ডায়ালগ থেকে Remove এ ক্লিক করলেই হবে। এছাড়াও নিজের একটি গ্রুফ তৈরী করতে চাইলে গ্রুফ পেজ থেকে +Create a new Group বাটনে ক্লিক করে পরবর্তী পদক্ষেপ অনুসরণ করুন।
অন্য একাউন্ট থেকে ফেসবুকে লগইন করা:

আরো ইমেইল যুক্ত করা বা পরিবর্তন করা: ফেসবুক যে ইমেইল দ্বারা রেজিস্ট্রেশন করা হয় এবং পরবর্তিতে উক্ত ইমেইল দ্বারা ফেসবুকে লগইন করতে হয়। কিন্তু আপনি চাইলে উক্ত ইমেইল ঠিকানা পরিবর্তন বা আরো ইমেইল ঠিকানা যুক্ত করতে পারবেন। এজন্য ফেসবুকে লগইন করে Accounts Settings এ যান। এবার Email এর change এ ক্লিক করে New Email: এ নতুন আরেকটি ইমেইল ঠিকানা লিখে Add New Email বাটনে ক্লিক করুন এবং Change Email বক্সে ফেসবুকের বর্তমান পাসওয়ার্ড লিখে Confirm বাটনে ক্লিক করুন। এবার নতুন যুক্ত করা মেইলে কনফার্মেশন মেইল যাবে উক্ত মেইলের লিংকে ক্লিক করে ইমেইল ঠিকানাটি নিশ্চিত করতে হবে। সদ্য যুক্ত করা ইমেইলটি ডিফল্ট হিসাবে থাকবে। এভাবে আরো মেইল ঠিকানা যুক্ত করা যাবে। আগের মেইলটি মুছে ফেলতে চাইলে Accounts Settings এ যান। এবার Email এর change এ ক্লিক করে যে মেইলটি মুছে ফেলতে চান তার ডানের Remove লিংকে ক্লিক করুন এবং ফেসবুকের বর্তমান পাসওয়ার্ড লিখে Confirm বাটনে ক্লিক করুন। ব্যাস আগের মেইলটি ফেসবুক থেকে মুছে যাবে।

ইউজার নাম সেট করা: সমপ্রতি ফেসবুক ব্যবহাকারীদের ইউজার নাম সেট করার সুযোগ দিয়েছে। এজন্য লগইন করা অবস্থায় www.facebook.com/username/ এ যান এবং পছন্দের ইউজার নাম সেট করুন। আপনি যদি mehdiakram নাম সেট করেন তাহলে আপনার ফেসবুকের ঠিকানা হবে www.facebook.com/mehdiakram/ যেখানে আগে প্রোফাইল আইডি দেখাতো।
সার্চ থেকে নিজেকে বিরত রাখা: ফেসবুকে ইমেইল ঠিকানা দ্বারা বা নাম দ্বারা সার্চ করলে প্রোফাইল দেখায় এবং আমন্ত্রণ করার সুযোগ দেয়। আপনি চাইলে নিজেকে এই সার্চ থেকে বিরত রাখতে পারেন এবং চাইলে শুধুমাত্র বন্ধু এবং বন্ধুর বন্ধুদের সার্চ করার সুযোগ দিতে পারেন। এজন্য Settings থেকে Privacy Settings এ যান। এবার Search এ ক্লিক করে Search Visibility অংশে কারা ফেসবুকে আপনাকে সার্চ করে পাবে তা নির্বাচন করুন। আর সার্চে আপনার কি কি তথ্য দেখাবে তা নির্বাচন করুন Search Result Content থেকে। অনান্য সার্চ ইঞ্জিন থেকে নিজেকে প্রদর্শিত না করতে চাইলে Public Search Listing এ আনচেক করুন।

ব্লক করা: নির্দিষ্ট কোন বন্ধু বা অনাকাঙ্খিত ব্যাক্তিকে আপনার প্রোফাইল বা অনান্য তথ্য দেখা থেকে বিরত রাখতে তাকে ব্লক করে রাখতে পারেন। এজন্য Settings থেকে Privacy Settings এ যান। এবার নিচের Block People এর অংশের টেক্সট বক্সে নাম লিখে Block বাটনে ক্লিক করুন। এবার যাকে ব্লক করতে চান সার্চের ডানে Block Person এ ক্লিক করুন। এভাবে আপনি একাধিক ব্যক্তিবর্গকে ব্লক করে রাখতে পারেন। কাউকে ব্লক করলে সে আপনাকে কোথাও সার্চ করে যেমন পাবে না তেমন তার সাথে পূর্বে বন্ধত্ব থাকলেও তা শেষ হয়ে যাবে। আর আনব্লক করতে চাইলে Block List থেকে Remove লিংকে ক্লিক করলেই হবে।

জিমেইলের সাথে যুক্ত করা: ফায়ারফক্স ব্যবহাকারীরা Xoopit এ্যাডঅন্স ব্যবহার করে জিমেইলের সাথে ফেসবুককে যুক্ত করতে পারেন। ফলে জিমেইল থেকে ফেসবুকে ছবি, ভিডিও যেমন দেখা যাবে তেমনই জিমেইল থেকেও শেয়ার করা যাবে। এজন্য https://addons.mozilla.org/en-US/firefox/addon/8257 থেকে এ্যাডঅন্স ইনস্টল করে নিন। এরপরে জিমেইল একাউন্টে লগইন করে Xoopit এ লগইন করতে হবে। বিস্তারিত পাবেন http://vimeo.com/3287784 এখানে।

টুয়িটার এবং ফেসবুক: টুয়িটার মিনি ব্লগ বেশ জনপ্রিয়। আপনি চাইলে টুয়িটারের স্ট্যাটাস ফেসবুকে যুক্ত করতে পারেন। এমনকি ফেসবুক থেকেও টুয়িটারে পোস্ট করতে পারেন। এজন্য http://apps.facebook.com/twitter/ এ্যাপলিকেশনটি যুক্ত করুন। এবার টুয়িটারের ইউজার নাম এবং পাসওয়ার্ড দ্বারা লগইন করুন। ব্যাস এখন থেকে আপনার টুয়িটারে কোন পোস্ট করলে তা ফেসবুকের ওয়ালে যেমন দেখাতে তেমনই ফেসবুকের টুয়িটার এ্যাপলিকেশনে আপনি কিছু লিখলে তা টুয়িটারে এবং ফেসবুকে দেখাবে।

ফায়ারফক্সের মাধ্যমে ফেসবুকে পোস্ট করা: ফায়ারফক্সের FireStatus এ্যাডঅন্স দ্বারা আপনার স্ট্যাটাস ফেসবুকসহ আরো বিভিন্ন সাইটে পোস্ট করতে পারবেন। এজন্য https://addons.mozilla.org/en-US/firefox/addon/8973 থেকে এ্যাডঅন্সটি ইনস্টল করে নিন। এবার স্ট্যটাস বারের ডানের FireStatus আইকনে কিক্ল করুন তাহলে স্ট্যটাস বারের উপরে একটি বার আসবে। এখানে আনার স্ট্যটাস লিখে ডানের ফেসবুক নির্বাচন করে Send বাটনে ক্লিক করুন তাহলে ফেসবুকের লগইন উইন্ডোজ আসবে লগইন করলে স্ট্যটাস ফেসবুকের ওয়ালে পোস্ট হবে।
ফায়ারফক্সের সাইটবারে ফেসবুক চ্যট: অনান্য সাইট ব্রাউজ করার পাশাপাশি ফায়ারফক্সের সাইটবারে ফেসবুকের বন্ধুদের সাথে চ্যাটিং করতে পারবেন। এজন্য www.facebook.com/presence/popout.php সাইটে যান এবং পেজটি বুকমার্ক করুন। এবার Bookmarks মেনুতে গিয়ে উক্ত বুকমার্কের উপরে মাউসের ডান বাটন ক্লিক করে Properties এ ক্লিক করুন। এখানে Load this bookmark in sidebar চেক করে Save Change বাটনে ক্লিক করে সেভ করুন। এখন থেকে Bookmarks মেনু থেকে বুকমার্ক করা ফেসবুক চ্যাটের উপরে ক্লিক করলে সাইটবারে শুধু চ্যাটিং অপশনটি আসবে।

ফায়ারফক্সের জন্য ফেসবুক টুলবার: ফায়ারফক্স ব্রাউজারের জন্য ফেসবুকের টুলবার ডাউনলোড করতে পাবেন http://developers.facebook.com/toolbar এখান থেকে।
পিজিনে ফেসবুকে চ্যাট করা: জনপ্রিয় ওপেন সোর্স ম্যাসেঞ্জার পিজিন দ্বারাও ফেসবুকের বন্ধুদের সাথে চ্যাটিং করতে পারবেন। এজন্য http://pidgin-facebookchat.googlecode.com থেকে প্লাগইনটি ডাউনলোড করে ইনস্টল করুন। এবার পিজিনে Accounts মেনু থেকে Manage Accounts এ ক্লিক করুন। এরপরে Add বাটনে ক্লিক করে Protocol থেকে Facebook নির্বাচন করুন এবং User Name এ ইমেইল ঠিকানা এবং ফেসবুকের পাসওয়ার্ড দিয়ে একাউন্ট যুক্ত করুন। এবং চ্যাটিং করুন ফেসবুকের বন্ধুদের সাথে। তবে এটা প্লাগইনটি বর্তমানে পোর্টেবল পিজিনে কাজ করবে না।

ফেসবুকের ছবির এ্যালবাম ডাউনলোড করা: ফেসবুকে শেয়ার করা ছবির এ্যালবামের (বন্ধুর এ্যালবাম, গ্রুফ এ্যালবাম, ইভেন্ট এ্যালবাম) সমস্ত ছবি একসাথে ডাউলোড করতে পারবেন ফায়ারফক্সের একটি এ্যাডঅন্স দ্বারা। এজন্য https://addons.mozilla.org/en-US/firefox/addon/8442 থেকে এ্যাডঅন্সটি ইনস্টল করুন। এবার যে এ্যালবামটি ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন তার উপরে মাউসের ডান বাটন ক্লিক করে Download Album with FacePAD এ ক্লিক পরবর্তী ম্যাসেজে Ok করুন। এবার একে একে ফাইলগুলোর সেভ ডায়ালগ বক্স আসবে সেখানে সেভ করলেই হবে।

নির্দিষ্ট বন্ধুদের ফ্রেন্ড বক্সে প্রর্দশিত করা: আপনার ফেসবুক প্রোফাইল যারা দেখবে তারা আপনার ফ্রেন্ড বক্সে কতগুলো বন্ধু দেখবে বা কাদের কাদের দেখবে তা আপনি নির্ধারণ করে দিতে পারেন। ডিফল্ট হিসাবে ৬জন বন্ধু বিক্ষিপ্তভাবে প্রদশিত হয়। এটা নির্ধারণ করতে আপনার ছবি উপরে ক্লিক করে প্রোফাইলে যান। এবার বাম পাশের Friends এর ডানের পেনসিলে ক্লিক করুন। Show এর ড্রপডাউন থেকে কতগুলো বন্ধুকে দেখাতে চান তা নির্ধারণ করুন। এবার Always show these friends: এর নিচে আপনার বন্ধুদের নাম যোগ করুন। ব্যাস এখন থেকে আপনার নির্ধারিত বন্ধুদের ফ্রেন্ড বক্সে সবসময়ে দেখাবে। নির্ধারিত করা বন্ধুদের সংখ্যা কম হলে বাকীগুলো অনান্য বন্ধুদের মধ্য থেকে বিক্ষিপ্তভাবে প্রদশিত হবে।
ওয়ার্ডপ্রেসের পোস্ট ফেসবুকের ওয়ালে সয়ংক্রিয়ভাবে আনা: আপনার যদি নিজস্ব ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ থাকে তাহলে wordbook প্লাগইন দ্বারা আপনি উক্ত ওয়ার্ডপ্রেসের লেখা সয়ংক্রিয়ভাবে ফেসবুকে আনতে পারবেন। এজন্য http://wordpress.org/extend/plugins/wordbook/ থেকে প্লাগইনটি ডাউনলোড করে আপনার ওয়ার্ডপ্রেসে ইনস্টল করুন এবং আপনার ফেসবুকের ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দ্বারা সেটিং নিশ্চিত করুন। এরপর থেকে আপনার উক্ত ওয়ার্ডপ্রেসে কোন পোস্ট করলে তা ফেসবুকে লিংক হিসাবে চলে আসবে।

ডেক্সটপে ফেসবুক: বিভিন্নভাবে ডেক্সটপে ফেসুবুক ব্যবহার করা যায়। এর মধ্যে রয়েছে Seesmic Desktop (http://desktop.seesmic.com), Facebooker (www.widgets.yahoo.com/widgets/facebooker), Xobni (www.xobni.com), Facebook Sidebar Gadget (www.facebooksidebargadget.com), Scrapboy (www.scrapboy.com) এবং Facebook AIR application (http://static.ak.fbcdn.net/fbair/Facebook_Desktop_for_AIR.zip) অন্যতম।

ফেসবুক বাংলাদেশ: ফেসবুকের আদলে তৈরী করা www.facebook.com.bd সাইটটি কিন্তু ফেসবুকের বাংলাদেশী সাইট নয়। মূল ফেসবুকের সাথে এই সাইটের কোন সম্পর্কও নেই। সুতারাং মূল ফেসবুক মনে করে এই সাইটি নিজ দায়িক্সে ব্যবহার ক তে পারেন।
ফেসবুকের একাউন্ট বন্ধ করা: আপনি যদি ফেসবুকের একাউন্টটি মুছে তাহলে উপরের ডানে Settings ট্যাব থেকে Account Settings এ ক্লিক করুন। এবার Deactivate Account এর Deactivate লিংকে ক্লিক করুন তাহলে Confirm Facebook Account Deactivation পেজ আসবে। এখানে কেন একাউন্ট বন্ধ করতে চাচ্ছেন তা নির্বাচন করে Deactivate বাটনে ক্লিক করুন তাহলে ফেসবুকের একাউন্টটি বন্ধ হয়ে যাবে। তবে যদি ভবিষ্যতে আবার একাউন্টটি সচল করতে চান তাহলে ফেসবুকে স্বাভাবিক ভাবে লগইন করলে রিএ্যাকটিভ মেইল যাবে আপনার মেইলে যেখানে ক্লিক করে পুনরাই একাউন্ট সচল করতে পারবেন।

Continue Reading

অন্যান্য

ইনস্টাগ্রামের অজানা ৩ ফিচার

Published

on

ফেইসবুক ও টুইটারের মতো ছবি শেয়ারিংয়ের মাধ্যম হিসেবে ইনস্টাগ্রাম বেশ জনপ্রিয়। ছবির পাশাপাশি এতে রয়েছে ভিডিও শেয়ার করার সুবিধাও। এতে বিভিন্ন ফিচার যুক্ত করা হচ্ছে সময়ে সময়ে।

ইনস্টাগ্রামের নতুন ব্যবহারকারীদের অনেকেই না জানার ফলে ফিচারগুলোর সুফল পাচ্ছেন না ।

এ টিউটোরিয়ালে তেমন তিন ফিচার সম্পর্কে তুলে ধরা হলো।

ছবি ও ভিডিও পরে দেখার জন্য সংরক্ষণ
ধরুণ আপনি ইনস্টাগ্রামের হোম পেইজ ব্রাউজ করছেন। হঠাৎ কোনো ছবি বা ভিডিও দেখে ভালো লাগলো, যা পরে আপনি দেখতে চান। চাইলে ইনস্টাগ্রামের ছবি পরেও দেখার জন্য সংরক্ষণ করে রাখা যাবে।

এ জন্য যে ছবিটি সংরক্ষণ করতে চান, সেটির ডান দিকে বুকমার্ক আইকনে ক্লিক করতে হবে। ছবিটি সংরক্ষণ হয়ে যাবার পর এটি আপনার প্রোফাইলের ট্যাবে দেখতে পাবেন।

মন্তব্য বন্ধ করতে
আপনার পোস্ট করা ছবি বা ভিডিওতে অন্যদের মন্তব্য বন্ধ করতে চান? ব্যবহারকারীদের এরূপ ইচ্ছার কথা ভেবেই ইনস্টাগ্রামে আপলোড করা নির্দিষ্ট ছবি কিংবা ভিডিওতে মন্তব্য বন্ধ করার সুবিধা যুক্ত করা হয়েছে।

আপনি যে পোস্টে মন্তব্য বন্ধ করতে চান, প্রথমে সেটি নির্বাচন করতে হবে। তারপর পোস্টের উপর একই সারিতে তিন বিন্দুর মত দেখতে আইকনে ক্লিক করে “Turn Off Commenting” নির্বাচন করে দিতে হবে। তাহলে আর কেউ পোস্টে কমেন্ট করতে পারবে না।

ক্যাপশন সম্পাদনা
ইনস্টাগ্রামে ছবি আপলোড করার পরে আপনার মনে হলো, এটির ক্যাপশনটি ঠিক হয়নি। এখন পুরাতন ক্যাপশনটি বদলে নতুন ক্যাপশন দিতে চান বা তা সম্পাদনা করতে চান।

এ কাজটি করতে পোস্টের উপরে একই সারিতে তিনটি বিন্দুর মত দেখতে বাটনে ক্লিক করতে হবে। এরপর Edit অপশন সিলেক্ট করে প্রয়োজনীয় সম্পাদনাটি করে নিন।

Continue Reading

অন্যান্য

কয়েকটি সার্টিফিকেট বানানোর ফন্ট ডাউনলোড করে নিন!!!

Published

on

সময়ে অসময়ে বা কারণে অকারণে যে কারো সার্টিফিকেট ফন্ট লাগে। আমি নিজেও এই সমস্যায় পড়েছিলাম। তাই উন্নতমানের ৮টি সার্টিফিকেট ফন্ট ডাউনলোড করে রাখুন।

ফন্ট ইনস্টল করার নিয়মঃ

যে ফন্টটি ইনস্টল করবেন তা কপি করুন। তারপর C ড্রাইভে গিয়ে Windows নামের ফোল্ডারে প্রবেশ করুন। সেখানে Font নামের ফোল্ডার পাবেন। Font  ফোল্ডারে কপি করা ফন্টটি past করুন।

Continue Reading

Trending

সম্পাদক ও প্রকাশক: তাহমিনা আক্তার খান © ২০০৯ - ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | টেকজুম ডটটিভি, মিডিয়াটিক্স ইনক্ এর একটি উদ্যোগ ১১/এ তল্লাবাগ (গ্রাউন্ড ফ্লোর), সোবহান বাগ, ঢাকা-১২০৭, বাংলাদেশ। মোবাইল: (+88) 01798 07 99 88, (+88) 016 777 00 555 ই-মেইল: news@techzoom.tv